যান্ত্রিক পরিকাঠামো যথেষ্ট নয়, খড় পোড়াতে বাধ্য হচ্ছেন পাঞ্জাবের কৃষকেরা

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 1

পাঞ্জাব-হরিয়ানায়া সাধারণত বছরের এই সময় রবি শস্য বপনের আগে খেত পরিষ্কার করার জন্য ধানের খড় পোড়ানো হয় এবং পোড়ানোর ধোঁয়া দূষণের মাত্রা বাড়ায়। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত, ভারতীয় কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (IARI) থেকে পাওয়া তথ্য অনুসারে পাঞ্জাবে ধানের অবশিষ্টাংশ পোড়ানোর ২৯ হাজার ৯৯৯টি ঘটনা রেকর্ড করা হয়েছে। ৬ নভেম্বর পর্যন্ত পাঞ্জাবের দক্ষিণের জেলাগুলিতে সর্বোচ্চ অগ্নিকাণ্ডের সংখ্যা রেকর্ড করা হয়েছে যার মধ্যে  সাংরুরে ৪৮১৫টি, পাতিয়ালায় ৩০০৫ টি ফসলের অবশিষ্টাংশ পোড়ানোর অভিযোগ রয়েছে।

কৃষকেরা দাবি করেছেন, পরিকাঠামোর অভাব থাকার জন্য তাঁরা খড় পোড়াতে বাধ্য হচ্ছেন। সাম্প্রতিক তথ্য অনুযায়ী যন্ত্রের দাম অস্বাভাবিক বেশি হওয়ায় কৃষকেরা সেই যন্ত্র কিনতে পারছেন না। এদিকে পাঞ্জাব সরকার খড় ব্যবস্থাপনার জন্য কৃষকদের প্রতি একর ২৫০০ টাকা আর্থিক সহযোগিতা দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। যদিও কৃষকদের বক্তব্য, এই পরিমাণ টাকা যথেষ্ট নয়। আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি খড়ের উপযুক্ত ব্যবস্থা করার জন্যে যান্ত্রিক পরিকাঠামো মজবুত করার দাবি তুলছেন কৃষকেরা।

সূত্র- দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *