মিলছে না পর্যাপ্ত সার, কৃষকেরা ক্ষুব্ধ

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 2

পাঞ্জাবের মুক্তসার জেলায় চাষিদের পর্যাপ্ত সার মিলছে না। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ স্থানীয় কৃষকেরা। জানা গেছে, অক্টোবরের ২৫ তারিখ থেকে নভেম্বরের ১৫ তারিখ পর্যন্ত গমের বীজ বপনের আদর্শ সময়। এই বীজ বপনের জন্য প্রতি একরে ৫৫ কেজি ডাই অ্যামোনিয়াম ফসফেট সারের প্রয়োজন। কিন্তু অভিযোগ, গত বছরের মতো চলতি বছরেও সার অপ্রতুল। বর্তমানে কিছু সার ব্যবসায়ী ডিএপি সার দিয়ে কীটনাশক বিক্রি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

পাঞ্জাবের গুরুসার গ্রামের কৃষক গুরমিত সিং বলেন, “আমার চার একর জমিতে গম বপন করার জন্য ডিএপি সার দরকার, কিন্তু কোথাও সেটা পাওয়া যাচ্ছে না”। এই অভিযোগ প্রায় সকল চাষিদের। কৃষক নেতা নির্মল সিং জাসিয়ানার বক্তব্য, “আগামী তিন-চার দিনে যদি অবস্থার উন্নতি না হয়, তবে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে পা বাড়াব।” কৃষকেরা অভিযোগ করছেন, সারের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে কৃষি বিভাগের আধিকারিকদের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন কৃষকেরা।

এ বিষয়ে মুক্তসারের প্রধান কৃষি আধিকারিক গুরপ্রীত সিং বলেন, “জেলায় ডিএপি সারের খুব কম ঘাটতি রয়েছে। ৫০ কেজি ওজনের এক ব্যাগ ডিএপি সারের দাম একজন কৃষকের জন্য ১৩৫০ টাকা। মোট ৩১০০০ মেট্রিক টন ডিএপি সারের প্রয়োজনের নিরিখে জেলায় ২১০০০ মেট্রিক টন সারের সরবরাহ হয়েছে। জেলায় মাত্র ৮ শতাংশ গম বপন করা হয়েছে”। তাঁর আরও বক্তব্য, সার ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সারের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে বিক্রি করার কোনো অভিযোগ তারা পাননি। যদিও গুরপ্রীতের এই কথা মিথ্যার শামিল বলে অভিযোগ কৃষকদের।

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *