জয় কিষাণ: ১২ অক্টোবর ২০২২

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 5

লাম্পি চর্মরোগে গবাদি পশুর মৃত্যু, কৃষকদের আর্থিক ক্ষতিপূরণের দাবিতে বোম্বে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা

দেশের বেশ কয়েকটি রাজ্যে লাম্পি চর্ম রোগে উজাড় হয়েছে গবাদি পশু। মহারাষ্ট্রের কৃষকদের মাথায় হাত। একনাথ শিন্ডে সরকার যাতে অবিলম্বে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেয়, সেই দাবিতে বোম্বে হাইকোর্টে গত মঙ্গলবার একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে। প্রাক্তন সাংসদ এবং স্বাভিমান কৃষক সংঘের প্রতিষ্ঠাতা রাজু শেট্টি বোম্বে হাইকোর্টে এই মামলা দায়ের করেন। আবেদনে বলা হয়েছে যে পশু আইন ২০০৯-এর সংক্রামক ও সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের বিধান অনুসারে সরকারকে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। শেট্টি বলেন, “মহারাষ্ট্র সরকার গরুর চিকিৎসা ও টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনো সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত নেয়নি। চলতি সপ্তাহেই বিচারপতি এস ভি গঙ্গাপুরওয়ালার নেতৃত্বে একটি ডিভিশন বেঞ্চের সামনে আবেদনটি শুনানি হওয়ার কথা।

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

ফসলের ক্ষতির জন্য অবসাদে কৃষকের আত্মহত্যা রাজস্থানে

অতিবৃষ্টির কারণে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন রাজস্থানের কৃষক। সোমবার রাতে রাজস্থানের ঝালাওয়ার জেলার সুনেল শহরে রাধেশ্যাম গুর্জার (৫০) গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। যদিও ফসলের ক্ষতি হওয়ার কারণেই যে আত্মহত্যা, পুলিশ প্রশাসন তা অস্বীকার করেছে। প্রশাসনের দাবি, মদ্যপ অবস্থায় ওই কৃষক আত্মহত্যা করেছেন। কিন্তু মৃত কৃষকের আত্মীয়রা দাবি করেছেন যে সাম্প্রতিক বৃষ্টিতে সয়াবিন ফসল নষ্ট হওয়ার পরে অবসাদগ্রস্থ ছিলেন রাধেশ্যাম। জানা গেছে, রাজস্থানের কোটা, বুন্দি, ঝালাওয়ার ও বারান জেলার কৃষকরা বৃষ্টির কারণে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

সূত্র: পিটিআই, দ্য প্রিন্ট ডট ইন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

সিংঘু ও টিকরি সীমান্তের পুনরাবৃত্তি পাঞ্জাবের সাঙ্গরুরে

সিংঘু ও টিকরি সীমান্তে কৃষকদের দীর্ঘস্থায়ী অবস্থান বিক্ষোভের পুনরাবৃত্তি এবারের পাঞ্জাব রাজ্যের সাঙ্গরুরে। আপ সরকারের কৃষক বিরোধী একাধিক পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ পাঞ্জাবি কৃষকেরা মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মানের বাসভবনের সামনে শুরু করেছেন অনির্দিষ্টকালীন বিক্ষোভ অবস্থান।
সোমবার থেকে শুরু হওয়া এই বিক্ষোভ অবস্থানে দলে দলে কৃষকেরা যোগ দিচ্ছেন। সিংঘু এবং টিকরি সীমান্তে গত বছরের আন্দোলনের মতোই সড়কের পাশেই সারবেঁধে ট্রাক্টর রেখে অবস্থান শুরু করেছেন।
তাঁদের ট্রাক্টর-ট্রেলারে স্থায়ী থাকার ব্যবস্থা করার পাশাপাশি সমস্ত সুযোগ-সুবিধা দিয়ে সজ্জিত ফ্যান, খাবার, মোবাইল-চার্জিং পয়েন্টের ব্যবস্থা রয়েছে। রয়েছে রান্নাবান্নার ব্যবস্থা।
সাংগ্রুর-পাটিয়ালা সড়কে প্রতিবাদস্থলের কাছে তার ট্রেলারে বসে থাকা একজন বয়স্ক ব্যক্তি, রাজিন্দর সিং বলেছেন, “বেশ কিছু দাবি থাকা সত্ত্বেও, পাঞ্জাব সরকার আমাদের দীর্ঘদিনের অমীমাংসিত দাবি পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। সরকারের বক্তব্য, তহবিলের অভাব রয়েছে, তাহলে মিডিয়াতে তাদের বিজ্ঞাপন করে কোটি কোটি টাকা নষ্ট করা হচ্ছে কেন?”
ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়ন (উগ্রাহান)-এর সাধারণ সম্পাদক সুখদেব সিং কোকরি কালানের জানিয়েছেন, দিল্লির কৃষক আন্দোলনের মতোই এখানেও কৃষকেরা তাঁদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এক চুলও নড়বে না। দীর্ঘমেয়াদি অবস্থান চলবে।

সূত্র: দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

বিদর্ভে ফসলের ক্ষয়ক্ষতির জেরে অবসাদগ্রস্ত কৃষকদের গণ-আত্মহত্যা

মহারাষ্ট্রের বিদর্ভে গত ৭২ ঘণ্টায় আত্মঘাতী হলেন অন্তত ৯ জন কৃষক। সূত্রের খবর, গত মাসে অতিবৃষ্টির জেরে খারিফ শস্যের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। আর তার জেরেই অবসাদ গ্রাস করে কৃষকদের। বিদর্ভ জন আন্দোলন সমিতির দাবি ১২ জন কৃষক চলতি মাসেই চরম সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর চলতি বছরে সেই জানুয়ারি মাস থেকে অন্তত ৫১২ জন কৃষক বিদর্ভে আত্মহত্যা করেছেন।

সূত্রের খবর, চারজন কৃষকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিরা কীটনাশক খেয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। শিবসেনার রাজ্য মুখপাত্র কিশোর তিওয়ারি জানিয়েছেন, বেশিরভাগই প্রান্তিক কৃষক। তাঁর দাবি, বর্তমান সরকার অর্থনৈতিক প্যাকেজ ঘোষণা করুক। রবি মরসুমে সরকার কৃষকদের পাশে দাঁড়াক। না হলে সমস্যা আরও বাড়বে। তিনি আরো বলেন, চলতি বছরের জুলাই মাস থেকে অতিবৃষ্টির জেরে ফসল ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কিন্তু ব্যাঙ্ক ও পাওনাদাররা তাঁদের ছাড়েনি।

সূত্র: হিন্দুস্থান টাইমস বাংলা

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

আরও খবর

তামিলনাড়ুতে অপ্রত্যাশিত বৃষ্টিতে ধানের ক্ষতি, কৃষক সংগঠনগুলির বিক্ষোভ

তামিলনাড়ুর পশ্চিমাঞ্চলীয় জেলাগুলির কৃষকরা ভালো খরিফ ফসলের আশায় চাষ করেও সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে আকস্মিক বর্ষণে হতবাক। ধানে আর্দ্রতা বেড়ে যাওয়ায় ফসল বিক্রি করতে পারছেন না তাঁরা। একাধিক কৃষক সংগঠন গত সপ্তাহে বিক্ষোভ শুরু করেছে।

সূত্রঃ নিউস ক্লিক ডট ইন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

অত্যাধিক গরমে ফসল নষ্ট, সোনা বন্ধক কৃষক বধূর

কোথাও অতিবৃষ্টি, কোথাও আবার অতিরিক্ত গরম, অনাবৃষ্টি। উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র-সহ বিভিন্ন রাজ্যে অতিবৃষ্টির কারণে নষ্ট হচ্ছে ফসল। আবার বিহারের গয়া প্রদেশে অতিরিক্ত গরমের কারণে ফসল নষ্ট হওয়ায় কৃষক বধূরা তাঁদের শেষ সঞ্চয় সোনা বন্ধক রেখে বাঁচতে চাইছেন। আবহাওয়ার এই অদ্ভুত আচরণের জন্য বিশ্ব উষ্ণায়নকেই দায়ী করছেন বিজ্ঞানীরা। বিশ্বের তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার প্রাক-শিল্পযুগে থেকে এখন অবধি থেকে ১.২ ডিগ্রি থেকে বেড়ে ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছে গেছে।

সূত্র: ইকো-বিজনেস ডট কম, থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কৃষকের থেকে লুট: ১১ অক্টোবর

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *