জয় কিষাণ: ৪ ডিসেম্বর ২০২২

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 5

কৃষকদের রাজভবন অভিযান নিয়ে বিশেষ ফটো ফিচার, পর্ব-৪

সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার দ্বিতীয় পর্যায়ের আন্দোলন-সংগ্রাম শুরু হয়েছে গত ২৬ নভেম্বর গোটা দেশে ‘রাজভবন চলো’ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে। আমরা ফটো ফিচারের মাধ্যমে ধারাবাহিকভাবে ঐতিহাসিক রাজভবন অভিযান কর্মসূচির ছবি ও সেই সংক্রান্ত তথ্যালাপ তুলে ধরছি। চতুর্থ পর্বে থাকছে দিল্লি, মহারাষ্ট্র, তামিলনাডু ও গোয়া 

বিশদে দেখতে এখানে ক্লিক করুন

আজমগড় বিমানবন্দর সম্প্রসারণের বিরুদ্ধে চাষিদের বিক্ষোভ ৫২ দিনে পড়ল

শীত ক্রমশ বাড়ছে। কনকনে ঠান্ডার মধ্যেই আজমগড় বিমানবন্দর সম্প্রসারণের বিরুদ্ধে অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন কৃষকরা। আজ প্রতিবাদ ৫২ দিনে পড়ল।

ইউডিএনের প্রকল্পের অধীনে এই কাজ চলছে। উত্তরপ্রদেশের আজমগর জেলায় বিমানবন্দর সম্প্রসারিত হলে আটটি গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে কৃষকরা আশঙ্কা করছেন। বিজেপি সরকার জোর করে তাঁদের চাষযোগ্য জমি কেড়ে নিয়ে সেখানে বিমানবন্দর তৈরি করতে চাইছে। কিন্তু চাষিরা জোটবদ্ধ হয়ে প্রতিবাদে নেমেছেন। তাঁদের দাবি, এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে তাঁদের থাকা-খাওয়ার সমস্যা হবে। ভারতে চাষিদের অবস্থা এমনিতেই দিনের পর দিন খারাপ হচ্ছে, তার মধ্যে এই প্রকল্পের ফলে তাঁদের বেঁচে থাকাই একপ্রকার অনিশ্চিত হয়ে পড়বে।

দেশের ইউনিয়ন সরকারের সাধারণ প্রান্তিক মানুষের জন্য কোনো মাথাব্যথা নেই। আর তাই উত্তরপ্রদেশের কৃষকরা দলে দলে প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন। সাধারণ কৃষকদের পাশাপাশি নাগরিক সমাজের কর্মীরা এই আন্দোলনে যোগ দিয়ে আন্দোলনের স্বতঃস্ফূর্ততা ধরে রাখতে সচেষ্ট হয়েছেন। উল্লেখযোগ্যভাবে কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত এবং গণ আন্দোলন কর্মী মেধা পাটেকর এই আন্দোলনে তাঁদের সংহতির কথা প্রকাশ্য সভা থেকে ঘোষণা করেছেন। এই বিক্ষোভে দলিত কৃষকদের অংশগ্রহণ চোখে পড়ার মতো।

সূত্র – নিউজ ক্লিক

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

গুজরাতে এবার গোপালকদের রোষে বিজেপি

গোরক্ষার কথা বলে সাম্প্রদায়িকতা ছড়ানোর অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে অনেকদিনের। এবার গরু পালনকারীদের এক বড় অংশ বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিল। গুজরাতে মালধারী গোষ্ঠীর তরফ থেকে সম্প্রতি পোস্টারের মাধ্যমে বিজেপি বিরোধী প্রচার চালানো হয়। এই গোষ্ঠীর মানুষেরা গবাদি পশু প্রতিপালন করেই জীবিকা অর্জন করেন।

সৌরাষ্ট্র, কচ্ছ এবং উত্তর গুজরাতে প্রায় ৬৫ লক্ষ মালধারী ভোটার রয়েছেন। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ মালধারীর ভোট বিজেপির বিরুদ্ধে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রাস্তায় রাস্তায় চরে বেড়ানো গবাদি পশুদের প্রতি সেরাজ্যের বিজেপি সরকারের অমনোযোগের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে গত ২১ নভেম্বর গুজরাত মালধারী মহাপঞ্চায়েত থেকে বিজেপির বিপক্ষে ভোট দেওয়ার আবেদন করা হয়।

সূত্র – দ্য ওয়্যার

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

পাঞ্জাবে ডিসট্রিক্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কমপ্লেক্সের ভেতরে কৃষকদের অবস্থানে মহিলা কৃষকদের বিপুল সাড়া

পাঞ্জাবের জলন্ধরে ডিসট্রিক্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কমপ্লেক্সের (DAC) ভিতরে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে কৃষকদের অনির্দিষ্টকালের বিক্ষোভ শনিবার অষ্টম দিনে প্রবেশ করল। পাঞ্জাবে মান-নেতৃত্বাধীন আপ সরকার তাদের ‘কৃষক-বিরোধী’ মনোভাবের জন্য এর আগে বৃহস্পতিবার দোয়াবা অঞ্চল জুড়ে বিপুল সংখ্যক মহিলা কৃষক ব্যাপক বিক্ষোভ করেছেন এবং পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ভাগবন্ত মানকে  তাঁদের এই পরিস্থিতির জন্য অভিযুক্ত করেছেন।

কিষাণ মজদুর সংঘর্ষ কমিটির রাজ্য আহ্বায়ক সুখবিন্দর সিং সাব্রা এবং জেলা সভাপতি সালবিন্দর সিং জানিয়ান বলেন, “রাজ্য জুড়ে ডিসি অফিসে কৃষকদের অনির্দিষ্টকালের বিক্ষোভ চলছে, কিন্তু সরকারের কোনও প্রতিনিধি তাঁদের কাছে আসেননি। যে সরকার ভোটের জন্য ক্ষমতায় আসার আগে জনগণের নিজের সরকার বলে দাবি করছিলেন তারা কৃষকদের সমস্যা সমাধান করা তো দূর, তারা সাংরুরে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনের বাইরে বিক্ষোভকারী কৃষক-শ্রমিকদের পুলিশ দিয়ে লাঠিচার্জ করেছিলেন।”

মহিলা কৃষক নেত্রীরা পাঞ্জাব সরকারের কাছে  দাবি তোলেন, “কৃষকদের দাবি স্বামীনাথন রিপোর্ট বাস্তবায়ন, ধানের খড়ের ক্ষতিপূরণ, চাষিদের সঙ্গে পঞ্চায়েতের জমি নিলাম বন্ধ, খড় পোড়ানোর জন্য কৃষকদের বিরুদ্ধে নথিভুক্ত এফআইআর বাতিল, বাজারদরের চারগুণে মহাসড়কের জমি অধিগ্রহণ-সহ উন্নত খাল ব্যবস্থার বিধান এবং প্রি-পেইড পাওয়ার মিটার সিস্টেম বাতিল করতে হবে। এছাড়াও জল দূষণের জন্য দায়ী কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলিকে কঠোর শাস্তি দিতে হবে।”

সংগ্রামী কৃষকরা বলেন, সরকার কৃষকদের দাবি পূরণে ব্যর্থ হলে আগামী দিনে তারা আরও বৃহত্তর আন্দোলনের দিকে ঝুঁকবেন।

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

ঋণ মকুবের দাবিতে পাতিয়ালায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দরের বাসভবনের বাইরে কৃষকদের তুমুল বিক্ষোভ

ভাতেরি কালান ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়ন (একতা)-এর সঙ্গে যুক্ত কৃষকরা শুক্রবার পাঞ্জাবের পাতিয়ালায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের বাসভবনের বাইরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। কৃষকদের অভিযোগ যে ক্যাপ্টেন অমরিন্দরের নেতৃত্বাধীন সরকার কৃষি ঋণ মকুবের প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনের বাইরে ‘চাক্কা জ্যাম’ কর্মসূচি পালন করেন।

কৃষকদের বক্তব্য অনুযায়ী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং ২০১৭ সালে কৃষি ঋণ মকুব করার আশ্বাস দিয়েছিলেন। ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের প্রেস সেক্রেটারি বলকার সিং বলেন, “প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কৃষকদের ঋণ মুকুবের যে আশ্বাস দিয়েছিলেন, সরকার তা করতে ব্যর্থ হয়েছে। যে কৃষকরা সরকারের আশ্বাসে তাঁদের ঋণের জন্য মাসিক কিস্তি দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন তাঁরা ঋণখেলাপি হয়ে গেছেন। ফলে ঋণের বোঝা নিয়ে তাঁদের মধ্যে অনেকেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন।”

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কৃষকের থেকে লুট: ২ ডিসেম্বর ২০২২

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *