জয় কিষাণ: ২৯ নভেম্বর ২০২২

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 4

পাঞ্জাবের জলন্ধরে কৃষকদের ধর্না তৃতীয় দিনে পড়ল  

পাঞ্জাবের জলন্ধরে জেলা প্রশাসন আধিকারিকের অফিসের বাইরে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে কৃষকদের অনির্দিষ্টকালের আন্দোলন সোমবার তৃতীয় দিনে পড়ল।

কৃষক নেতা সালবিন্দর সিং জনিয়া অভিযোগ করেন, রাজ্য সরকার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণ করেনি। তাঁর সাফ কথা, ক্ষেত মজুরদের ওপর রাজ্য সরকারকে অবিলম্বে নির্যাতন বন্ধ করতে হবে। তিনি স্বামীনাথন রিপোর্টকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বাস্তবায়নের দাবি করেছেন। এছাড়াও যাতে সেচের জন্য বিশুদ্ধ জল পাওয়া যায় সেজন্য নদীর জলে নর্দমা এবং কলকারখানার বর্জ্য ফেলার ওপর নিষেধাজ্ঞার দাবিও করেন। জনিয়া বলেন, কৃষকরা তাঁদের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত জেলা প্রশাসন অফিসের সামনে ধর্না চালিয়ে যাবেন।

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

খরা আক্রান্ত চাষিদের জন্য বিশেষ ঘোষণা ঝাড়খন্ডের মুখ্যমন্ত্রীর

ঝাড়খন্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন রবিবার খরা আক্রান্ত চাষিদের জন্য বিশেষ ত্রাণ ঘোষণা করেছেন। রাজ্যের তিরিশ লক্ষ চাষিদের প্রত্যেককে ৩৫০০ টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন তিনি। রামগড় জেলার লুকাইয়াতান্ড এলাকায় রবিবার একটি প্রকাশ্য জনসভায় বক্তব্য রাখার সময় এই ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, “এটি কৃষকদের জন্য একটি প্রাথমিক স্বস্তির বিষয়। আমাদের রাজ্য সরকার কেন্দ্রের কাছ থেকেও খরা ত্রাণ প্যাকেজ দাবি করায় চাষিরা আরও বেশি অর্থ পাবে।” তিনি আরও বলেন “শীঘ্রই, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের প্রাথমিক ত্রাণ বিতরণ করার জন্য গ্রাম এবং পঞ্চায়েত স্তরে শিবিরের আয়োজন করা হবে।” প্রসঙ্গত, সেরাজ্যের সরকার গত ২৯ অক্টোবর রাজ্যের ২৬০টি ব্লকের মধ্যে ২২৬টি খরা প্রভাবিত হিসাবে ঘোষণা করে।

রবিবার মুখ্যমন্ত্রী অন্য একটি অনুষ্ঠানে তাঁর ঠাকুরদা সোবরণ মাঁঝির ৬৫তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানাতে রবিবার তাঁর জন্মস্থান নেমরা গ্রামে যান। তিনি ওই গ্রামে তাঁর শৈশবের কথা স্মরণ করে বলেন, “এই গ্রামে কোন পাকা রাস্তা ছিল না। আমি-সহ আমাদের সবাইকে হেঁটে বাড়ি যেতে হত। কিন্তু এখন শুধু গ্রামের নয়, গোটা রাজ্যের দৃশ্যপট বদলে গেছে। লুকাইয়াতান্ডে একটি স্কুল তৈরির দাবি মঞ্জুর করা হয়েছে এবং রাস্তা তৈরি করা হচ্ছে।” উল্লেখ্য, এদিনের স্মরণ সভায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং জেএমএম সুপ্রিমো শিবু সোরেন গ্রামবাসীদের তাদের সন্তানদের শিক্ষিত করতে অনুরোধ করেন।

সূত্র- দ্য সিয়াসাত ডেইলি

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কৃষিজমি রক্ষায় আন্দোলনের পথে সাঙ্গুয়েমের কৃষকরা

গোয়ার সাঙ্গুয়েমের কোটারলিতে কৃষকরা তাঁদের কৃষিজমি রক্ষার জন্য জোর লড়াই-সংগ্রামের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কৃষিজমি দখল করে সেখানে আইআইটির ক্যাম্পাস নির্মাণ যে প্রকল্প নিয়েছে গোয়া সরকার, তার বিরুদ্ধে অরকোটোতে গত রবিবার একটি সভার আয়োজন করা হয়। কৃষক নেতা জোসেফ ফার্নান্দেজ বলেন, কৃষকদের অনুভূতি নিয়ে খেলা করা বন্ধ করুক রাজ্য সরকার। তিনি আরও বলেন, প্রথমে কৃষকেরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে গোয়া সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করবেন। তারপরেও যদি সরকার তাঁদের দাবি না মেনে নেন তাহলে তাঁরা বৃহত্তম আন্দোলনের পথে নামবেন।

সূত্র- দ্য গোন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কর্ণাটকে একাধিক দাবিতে অনশনে আখ চাষিরা

কর্ণাটক রাজ্য রাইথা সংঘ এবং কর্ণাটক আখ চাষি সমিতির নেতৃত্বে কৃষকরা ফসলের ন্যায্যমূল্য ও পারিশ্রমিক মূল্য-সহ একাধিক দাবির সমর্থনে ফ্রিডম পার্কে অনশন করছেন। শনিবার ফ্রিডম পার্কে অনশন চলাকালীন তাঁদের একটি মিছিল শেষাদ্রি রোডে প্রবেশের সময় কৃষক নেতা কুরুবুর শান্তকুমার-সহ আরও ৫০ জনের ওপর কৃষককে হেফাজতে নেয় পুলিশ।

ধর্মঘটের পঞ্চম দিনের মাথায় শত শত কৃষক কালো পতাকা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে দিতে শেষাদ্রি রোডে প্রবেশের চেষ্টা করে। আপ্পারপেট পুলিশ বিক্ষোভকারীদের আটক করে। পুলিশের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে কৃষকদের মুক্তির দাবিতে আখ চাষিরা মহাসড়ক অবরোধ করেন।

সূত্র- নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কৃষকের থেকে লুট: ২৬ নভেম্বর ২০২২

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *