জয় কিষাণ : ৬ অক্টোবর ২০২৩

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 3

চাষ জমির অধিকার ছাড়বেন না বর্গাদার, পাট্টাদাররা

নিজস্ব সংবাদদাতা: বর্গাদারদের উচ্ছেদ করে ভুয়ো দলিলের মাধ্যমে হাত বদলের প্রতিবাদে এবং এই জালিয়াতি চক্রে যুক্তদের শাস্তি চেয়ে বুধবার আড়গ্রাম মহকুমা ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দপ্তরে বিক্ষোভ দেখালো সারা ভারত কৃষকসভা ঝাড়গ্রাম জেলা কমিটি। এদিন মিছিল করে বিএলএলআরও অফিসে যান বর্গাদাররা। সেখানে অবস্থানে বসেন।

বিক্ষোভ অবস্থান থেকে মহকুমা ভূমি আধিকারিককে ডেপুটেশন দেওয়া হয়। বর্গাদারদের অভিযোগ, তাঁদের তিনশো বিঘার বেশি জমি ব্লক ভূমি দপ্তরের একাংশ কর্মীদের যোগসাজশে ভুয়ো দলিলের মাধ্যমে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মদতে জোতদারদের উত্তরসূরিদের নামে করে দেওয়া হয়েছে। যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে -এই দুর্নীতির সঙ্গে যুক্তদের শাস্তির দাবিতে সরব হন বর্গাদাররা।

সরকারের অনীহার জেরে বর্জ্যমিশ্রিত নদীর জলে মাছ চাষের ক্ষতি

বৃষ্টির জল নয়। আবাসিক এলাকার আবর্জনাময় জল। গ্রামের পাশ দিয়ে বইছে বিদ্যাধরী নদীর শাখা। বছরের পর বছর সেই জলই ভরসা ছিল বারাসত-২ ব্লকের বহু গ্রামের মাছ চাষিদের। কিন্তু এখন আবাসিক এলাকার দূষিত জল সেই শাখা নদীতে মিশে সেখানকার ভেড়িগুলিকেও দূষিত করছে। যার জেরে গত কয়েক বছর ধরেই চিংড়ি-সহ একাধিক ধরনের মাছের চাষ ধাক্কা খাচ্ছে। চাষিরা জানাচ্ছেন, সব চেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে গলদা ও বাগদা চিংড়ির চাষ। কারণ ওই মাছ মরে গেলে প্রচুর আর্থিক ক্ষতি হয়। যার জেরে ব্যবসায়ীরা এখন ওই ধরনের মাছ চাষে অনীহা দেখাচ্ছেন। ফলে মার খাচ্ছে রফতানির ব্যবসাও।

এই নিয়ে চরম ক্ষোভ রয়েছে মাছ চাষিদের মধ্যে। সমস্যা সমাধানে পঞ্চায়েত তথা প্রশাসনের উদাসীনতা রয়েছে বলেও অভিযোগ অনেকের। চিংড়ির বাজার ধরতে গলদা-বাগদার বদলে মেদিনীপুরের ভেনামি চিংড়ির চাষ করে গত কয়েক বছর ধরে হারানো বাজার ধরার চেষ্টা করছেন চাষিরা। 

শেষ হল সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার তিন দিনব্যাপী মহাযাত্রা

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভোপালে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার তিনদিনের কিষাণ মহাপরবের শেষ দিনে, মুখ্যমন্ত্রীর ওএসডি সন্তোষ শর্মা প্রতিবাদস্থলে এসে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার নেতাদের কাছ থেকে একটি স্মারকলিপি গ্রহণ করেন। কিষাণ পঞ্চায়েতে পৌঁছে প্রথমে নর্মদা বাঁচাও আন্দোলনের নেত্রী মেধা পাটেকর এবং নর্মদা উপত্যকার বাস্তুচ্যুত মানুষ তাদের সমস্যা নিয়ে একটি স্মারকলিপি জমা দেন।

পেঞ্চ ডাইভারশন প্রকল্পের বাস্তুচ্যুত কৃষক এবং আদানি পেঞ্চ পাওয়ার প্রকল্পের ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সাহায্য করা হয়েছে। আরাধনা ভার্গব ও সাজে চন্দ্রবংশীর নেতৃত্বে স্মারকলিপি পেশ করা হয়। সমস্ত ট্রেড ইউনিয়নের পক্ষে তৃতীয় স্মারকলিপি জমা দেন পিএল ভার্মা।

সাংবাদিকদের ওপর এনআইএ অভিযানের তীব্র নিন্দা এআইকেএমএস-এর

নিজস্ব সংবাদদাতা: এআইকেএমএসের সিইসি গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সাংবাদিক, কর্মী এবং নাগরিক অধিকার নেতাদের উপর এনআইএ অভিযান করার তীব্র নিন্দা করেছে। ৩০ জন সাংবাদিকের উপর অভিযান করে, যাদের অনেকেই নিউজক্লিকের সঙ্গে যুক্ত, যারা বিজেপির জনবিরোধী এবং কর্পোরেট শাসনের পক্ষপাতিত্ব প্রকাশ করার সাহস করেছে তাঁদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালায়।

এর আগে এনআইএ অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তেলেঙ্গানা এবং অন্যান্য কয়েকটি রাজ্যে নাগরিক স্বাধীনতা সংগঠনের সঙ্গে সম্পর্কিত বেশ কয়েকজন কর্মীর বাড়িতে, দপ্তরে এমন অভিযান চালিয়েছিল।

কৃষকের থেকে লুট: ৪ অক্টোবর ২০২৩

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *