জয় কিষাণ: ৪ জানুয়ারি ২০২৩

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 5

পাঞ্জাব-হরিয়ানায় জলের সমস্যা নিয়ে আন্দোলনে কৃষকরা

পাঞ্জাব এবং হরিয়ানায় জলের সংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে। পাঁচটি কৃষক সংগঠন এই দুই রাজ্যের জল সমস্যা নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করতে চলেছে। ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়ন (রাজেওয়াল), অল ইন্ডিয়া কিষাণ ফেডারেশন, কিষাণ সংঘর্ষ কমিটি পাঞ্জাব, ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়ন (মানসা) এবং আজাদ কিষাণ সংঘর্ষ কমিটি দুই রাজ্যের সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে, জনগণের ইচ্ছের বিপরীতে প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ নিলে প্রবল আন্দোলন শুরু হবে।

বুধবার কেন্দ্রীয় জলসম্পদ মন্ত্রীর সঙ্গে পাঞ্জাব ও হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠক রয়েছে। তার প্রেক্ষিতে একটি যৌথ বিবৃতিতে কৃষক সংগঠনগুলির পক্ষ থেকে বলবীর সিং রাজেওয়াল, প্রেম সিং ভাঙ্গু, কানওয়ালপ্রীত সিং পান্নু, বোঘ সিং মানসা এবং হরজিন্দর সিং তান্ডা বলেন যে বহুদিন ধরেই রাজনৈতিক স্বার্থে কেন্দ্রীয় সরকারগুলি পাঞ্জাব ও হরিয়ানাকে বিবাদে জড়িয়ে রেখে জলের সমস্যাকে জটিল করে তুলেছে।

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

৫ একর জমির মালিক চাষি আজ ভিক্ষুক

তেলেঙ্গানায় আদিবাসী কৃষকদের অবস্থা ভয়াবহ। সেই রাজ্যের ইয়াদাদ্রি ভুবনগিরি জেলার সামস্থান নারায়ণপুরম মণ্ডলের অধীনস্থ থুম্বভি থান্ডার বাসিন্দা আদিবাসী কৃষক মেঘাবথ বিচ্যানায়ক পাথর-কাঁকর দিয়ে ঢাকা জমি সমতল করার জন্য এবং দুটি বোরওয়েল ডুবিয়ে দেওয়ার জন্য ঋণ নেন। কিন্তু বিচ্যানায়কের জমির মালিকানা রাজ্য সরকার কেড়ে নেয়। যার জন্য তিনি রাইথু বন্ধু ভর্তুকি পাওয়ার অযোগ্য হয়ে পড়েন। এমনকি রাইথু বিমাও তাঁর জন্য প্রযোজ্য হবে না।

বিচ্যানায়ক তাঁর সমস্যাটি জেলা কালেক্টর-সহ সমস্ত আধিকারিকদের নজরে আনলেও কোনও লাভ হয়নি। সম্প্রতি বন কর্মকর্তারা তাঁর জমি বন বিভাগের অন্তর্গত বলে দাবি করে এবং ভবিষ্যতে জমিতে প্রবেশ না করার বিষয়ে তাঁকে সতর্ক করে দেয়। জমির উন্নয়নের জন্য যে দেনা ছিল তা পরিশোধ করতে তাঁর দুই ছেলে দিনমজুরি করে। ছেলেরা তাঁকে না দেখার ফলে বিচ্যানায়ক থুম্বভি থান্ডার কাছে সরলা মাইসাম্মা মন্দিরে তাঁর স্ত্রী এবং নিজের অন্নসংস্থানের জন্য ভিক্ষা শুরু করেন। বিচ্যানায়ক বলেন, এক সময় তিনি এবং তাঁর দুই ছেলে ও মেয়েরা জমিতে চাষাবাদ করে আরামদায়ক জীবনযাপন করতেন। কিন্তু এখন ভিক্ষা করে দিনে ১০০ টাকাও রোজগার হচ্ছে না।

সূত্র- দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

নিজেকে মাটিতে পুঁতে প্রতিবাদ জানালেন মহারাষ্ট্রের কৃষক

তিন বছর আগে মহারাষ্ট্রে দাদাসাহেব গায়কওয়াড় প্রকল্প শুরু হয়। এই প্রকল্পের অধীনে বরাদ্দ জমির মালিকানা না পাওয়ায় নিজেকে মাটিতে পুঁতে সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানালেন এক কৃষক। প্রতিবাদী এই কৃষকের নাম সুনীল যাদব। তিনি জালনা জেলার বাসিন্দা।

তাঁর অভিযোগ, ২০১৯ সালে এই প্রকল্পের অধীনে তাঁর নামে দুই একর জমি বরাদ্দ করা হয়। কিন্তু এখনও পর্যন্ত সেই জমির কোন আইনি কাগজপত্র বা মালিকানা না পাওয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে তিনি এই পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছেন। তিনি বলেন, জমির দখল না পাওয়া অবধি প্রতিবাদে অনড় থাকবেন।

সূত্র- টাইমস নাও নবভারত

বিশদে জানতে ভিডিওটি দেখুন

মুর্শিদাবাদে মাটিতে পড়ে নষ্ট হচ্ছে আলুর বীজ

গত দু’দিন ধরে মুর্শিদাবাদে কৃষকদের বিনা পয়সায় পাঞ্জাবের আলুর বীজ বিতরণ করা হচ্ছে। বড়ঞা ব্লকের ডাকবাংলোয় এই বীজের চাহিদা কম থাকায় মাটিতে পড়ে নষ্ট হচ্ছে আলুর বীজ।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, এই মরসুমের প্রথম থেকে চাহিদা বিপুল থাকায় আড়াই থেকে তিন হাজার টাকায় ৫০ কেজির বস্তা বিক্রি হচ্ছিল। সম্প্রতি চাহিদা কমে যাওয়ায় বিক্রিতে হ্রাস ঘটে। পড়ে থাকার ফলে বেশিরভাগ বীজে পচন ধরে যাচ্ছিল। নষ্ট হওয়ার হাত থেকে বাঁচাতেই বিনামূল্যে কৃষকদের দিয়ে দেওয়া হচ্ছিল পাঞ্জাবের আলুর বীজ। কিন্তু এত কিছু করেও নষ্ট হওয়ার হাত থেকে বীজকে বাঁচানো গেল না। চাহিদার অভাবে মাটিতে পড়ে ধ্বংস হচ্ছে আলুর বীজ।

সূত্র- ইটিভি ভারত

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কড়াইশুঁটির নকল বীজ, বিপাকে বহু চাষি

আসন্ন চাষের মরশুমে দোকান থেকে বীজ কিনে কড়াইশুঁটি চাষ করেছিলেন জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জের টাকিমারি এলাকার চাষিরা। কিন্তু ফসল উৎপাদনের সময় হয়ে গেলেও তা শুরু না হওয়ায় মাথায় হাত পড়েছে কৃষকদের। প্রায় ৫০০ কৃষক এই ট্র্যাজেডির শিকার। এর জেরে ফসলের ক্ষয়ক্ষতি প্রায় ৩০ কোটি টাকা ছাড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

টাকিমারি বাজারের একাধিক বীজের দোকান থেকে বীজ কিনে প্রায় কয়েক হাজার বিঘা জমিতে কড়াইশুঁটি চাষ করেন কৃষকরা। কিন্তু চাষিদের অভিযোগ, গাছ ঠিকঠাক হলেও তাতে ফলন হচ্ছে না। নকল বীজ দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ পেয়ে কৃষি দফতরের আধিকারিকরা ক্ষতিগ্রস্ত জমি পরিদর্শনে যান। এরপরেই জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জের টাকিমারি এলাকার একটি বীজের দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়। যদিও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছে কৃষি দফতর।

সূত্র- ইটিভি ভারত

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন


ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *