জয় কিষাণ: ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 4

পাঞ্জাবে আবার কৃষকদের রেল রোকো কর্মসূচি

ভারত মালা প্রকল্পের জন্য অধিগৃহীত জমির ন্যায্য ক্ষতিপূরণের দাবিতে কিষাণ মজদুর সংঘর্ষ কমিটি ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে গুরুদাসপুরে সরকারের বিরুদ্ধে রেল রোকো কর্মসূচি পালন করবে। রবিবার পাঞ্জাবের অমৃতসরে সংগঠনের একটি বৈঠকের পর কিষাণ মজদুর সংঘর্ষ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সারওয়ান সিং পান্ধের একথা জানিয়েছেন।

পান্ধের অভিযোগ করেন কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিকে জমির ক্ষতিপূরণ হিসেবে বেশি দেওয়া হলেও বাকিদের অনেক কম দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও তিনি বলেন, পাশাপাশি সংলগ্ন দুটি প্লটের ক্ষতিপূরণে বৈষম্যের কারণ জানায়নি প্রশাসন।

কেএমএসসি’র নেতারা জানান, গুরুদাসপুরে রেল রোকোতে নারী-সহ হাজার হাজার কৃষক অংশ নেবেন। তাঁরা বলেছেন যে অন্যান্য দাবিগুলির মধ্যে রয়েছে আখের বকেয়া মুক্তি, ক্ষতিপূরণ এবং দিল্লি সীমান্তে আন্দোলনের সময় নিহত কৃষকদের আত্মীয়দের জন্য চাকরি।

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

অল ইন্ডিয়া কিষাণ মজদুর সভার প্রতিবাদ

নিজস্ব প্রতিনিধি: তামিলনাড়ু সরকার কৃষ্ণগিরি জেলার ইয়েনিয়োগাল পন্ডুরে চেন্নাই পনিওর নদীর উপরে একটি ১০০-১৫০ ফুট চওড়া খাল নির্মাণের পরিকল্পনা করেছে। এই খালটি আসলে বেঙ্গালুরু থেকে জল সরানোর পরিকল্পনায় করা হয়েছে। এআইকেএমএস এর নেতৃত্বে বহু ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ এর বিরোধিতা করেছেন এবং নির্মাণ কাজে বাধা দিয়েছেন। ১৮টি গ্রামের ২১ জন সদস্য নিয়ে একটি যৌথ সংগ্রাম কমিটি গঠন করা হয়।

বারবার প্রতিরোধের চেষ্টার পরে ৯ ফেব্রুয়ারি কৃষ্ণগিরিতে বিশাল ধর্না অনুষ্ঠিত হয়। ২৬৭ জনকে পুলিশ আটক করে। যৌথ সংগ্রাম কমিটির দাবি, এআইডিএমকে সরকার যখন এই খাল প্রকল্পটি শুরু করেছিল, ডিএমকে এর বিরোধিতা করেছিল এবং তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে এটি বন্ধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু ডিএমকে ক্ষমতায় আসার পর একই প্রকল্প অব্যাহত রেখেছে। তাঁদের দাবি, সরকার যখন জমি দখল অব্যাহত রাখছে তখন কৃষকরা বৃহত্তর প্রতিরোধ গড়ে তুলবেন।

পশ্চিম মেদিনীপুরে চাষিদের বিক্ষোভ

পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা রাজ্য সড়কে রবিবার রাস্তায় আলু ফেলে সড়ক অবরোধ করেন বামেরা। তাঁদের দাবি, সহায়ক মূল্যে সরকারকে চাষিদের থেকে আলু কিনতে হবে। বর্গা ও পাট্টা উচ্ছেদের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলেন কৃষকসভার হাজারো বাম কর্মী এবং সমর্থকেরা। তাঁরা চন্দ্রকোনার গাছশীতলা এলাকায় ঘাটাল সংলগ্ন রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান ।

রাজ্যের যেসব জেলায় আলু উৎপাদন হয় তার মধ্যে অন্যতম হলো পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা। এছাড়া বাঁকুড়া ও হুগলি জেলাতেও আলু চাষ হয়। ন্যায্য দাম পাচ্ছেনা চাষিরা বলেও অভিযোগ তুলেছেন বাম কর্মী ও সমর্থকেরা। বাম নেতা রামেশ্বর দলুইয়ের মতে আলুর মূল্য ৯০০ টাকা প্রতি কুইন্টাল করা দরকার, যেখানে এখন আলুর মূল্য ৪০০ টাকা প্রতি কুইন্টাল। ঠিকঠাক দাম না পাওয়ায় কৃষক আত্মহত্যা করছেন। কৃষি দপ্তর ও স্থানীয় বিডিও যতক্ষণ না ব্যবস্থা নেবেন এই বিক্ষোভ চলবে বলে জানান বাম নেতা।

সূত্র- এই সময়

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের দাবি, দিল্লি সরকার কৃষকদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করুক

ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়ন দিল্লির সভাপতি বীরেন্দ্র ডাগর এবং দিল্লি প্রদেশ কিষাণ ইউনিয়নের সম্পাদক দলজিৎ সিং জাফরা কলা থানার কাছে সোমবার এক বিশাল মহাপঞ্চায়েতের আয়োজন করেন। কৃষক সংগঠনগুলির এই মহাপঞ্চায়েতের মূল উদ্দেশ্য ছিল গত বছর দিল্লি সরকার চাষিদের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা সরকার পূরণ করুক।

উল্লেখ্য, গত বছর অকাল বর্ষণে কৃষকদের ফসল নষ্ট হয়। এই ঘটনায় কৃষকরা দিল্লি সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। যদিও দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কৃষকদের ফসলের ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেন কিন্তু এক বছর কেটে গেলেও কৃষকরা কোনো ক্ষতিপূরণ পাননি।

ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের আরেকটি দাবির মধ্যে ছিল ভূমিহীন কৃষকদের যে জমি চাষের জন্য দেওয়া হয়েছিল তার মালিকানা ভূমিহীন কৃষকদের প্রদান করতে হবে। কৃষক নেতারা এদিন সাফ বলেন কৃষকদের দাবি মানা না হলে তাঁরা আরও বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাঁটবেন।

সূত্র- হাম সব কা মঞ্চ

বিশদে জানতে ভিডিওটি দেখুন

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *