জয় কিষাণ: ১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 4

বিশেষ ফটো ফিচার: ২৬ জানুয়ারি দেশজুড়ে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার নানা কর্মসূচি, পর্ব – ৩

সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার ডাকে ২৬ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সারা দেশের কৃষকরা বিভিন্ন রাজ্যের জেলায় জেলায় ট্রাক্টর মিছিল, পদযাত্রা এবং আরও নানা কর্মসূচি পালন করলেন। দিল্লির কৃষক আন্দোলনে শহিদ হওয়া চাষিদের স্মরণ করলেন তাঁরা। আমরা ফটো ফিচারের মাধ্যমে ধারাবাহিকভাবে সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার এদিনের দেশব্যাপী ট্রাক্টর মিছিল, পদযাত্রা এবং শহিদ স্মরণ অনুষ্ঠানের ছবি ও সেই সংক্রান্ত তথ্যালাপ তুলে ধরছি। তৃতীয় তথা অন্তিম পর্বে থাকছে অন্ধ্রপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, গুজরাত, কর্ণাটক ও হরিয়ানা।

বিশদে দেখতে এখানে ক্লিক করুন

উত্তর দিনাজপুরে কৃষকদের বিক্ষোভ

চাষিদের নিয়ে আসা ধান দ্রুততার সঙ্গে ক্রয় করা, কৃষকদের ধান বিক্রির প্রক্রিয়া সরল ও দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করা এবং যেসব কৃষকরা নিজেদের ধান বিক্রি করার জন্য আনতে পারছে না তাঁদের ধান নেওয়ার ব্যবস্থা করার দাবিতে অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হলেন অল ইন্ডিয়া কিষাণ খেতমজদুর সংগঠনের ইসলামপুর ব্লক কমিটির সদস্যরা।

সোমবার উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর মহকুমা খাদ্য সরবরাহ দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। এদিন প্রায় ১০০টি গাড়িতে ধানের বস্তা বোঝাই করে খাদ্য সরবরাহ দফতর সংলগ্ন এলাকায় রাস্তার পাশে দাঁড় করিয়ে রাখেন কৃষকরা। যতক্ষণ তাঁদের দাবি না মানা হবে ততক্ষণ তাঁরা এই অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন সংগঠনের নেতারা।

সূত্র- উত্তরবঙ্গ সংবাদ

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

উত্তরপ্রদেশে আন্দোলনের ডাক দিলেন রাকেশ টিকায়েত

উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরে ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়ন জিআইসি ময়দানে অনির্দিষ্টকালীন ধর্না শুরু করেছে। দূর-দূরান্ত থেকে কৃষকেরা এসে এখানে তাঁদের দাবি নিয়ে আওয়াজ তুলেছেন। ন্যূনতম সহায়ক মূল্য-সহ বিদ্যুৎ মূল্য এবং অন্যান্য দাবিতে তাঁরা একজোট হয়েছেন বলে জানান কৃষকরা। এদিন ধর্নামঞ্চ থেকে আন্দোলনকে দীর্ঘায়িত করার হুঁশিয়ারি দেন কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত। তিনি বলেন যে, “সরকার কৃষকদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে”। এছাড়াও তিনি কৃষকদের সরকার বিদ্যুৎ বিনামূল্যে দেওয়ার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা রক্ষা করতে না পারার জন্য দায়ী করেন। কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত সাফ জানান তাঁদের দাবি সরকার না মানা পর্যন্ত আন্দোলন দীর্ঘায়িত হবে।

সূত্র- এবিপি গঙ্গা

বিশদে জানতে ভিডিওটি দেখুন

হরিয়ানায় কৃষক বিক্ষোভ

হরিয়ানার সিরসায় সোমবার ভারতীয় কিষাণ একতা কৃষকদের নিয়ে একটি প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। ২০২০ সালে খারিফ ফসলের ক্ষতি হবার জন্য সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণের দাবি তোলা হয় এবং একসপ্তাহ আগে এই দাবি নিয়েই তাঁরা একটি ‘পাক্কা মোর্চা’ শুরু করেন।

ভারতীয় কিষাণ একতা’র নেতৃত্বে ‘পাক্কা মোর্চা’য় অংশগ্রহণকারী কৃষকরা শহরের লাল বাট্টি চক পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করেন। এদিন তাঁরা সরকারের কুশপুত্তুলিকাও দাহ করেন। ২০২০ সালে শস্যের ক্ষতির জন্য কৃষকদের ২৬৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ সরকারকে দেওয়ার দাবি জানান কৃষকরা। কৃষকরা সাফ জানান তাঁদের দাবি সরকার মেনে না নেওয়া পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন চলবে।

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

সেচের দাবিতে পাঞ্জাবে কৃষকদের রেল-রোকো

বিকেইউ (একতা-উগ্রহন)-এর নেতৃত্বে মানসার খোখর খুর্দ গ্রামের কৃষকরা সোমবার কয়েক ঘন্টার জন্য দিল্লি-ভাতিন্ডা রেলপথ অবরোধ করেন । রেললাইনে ট্র্যাকের নিচ দিয়ে একটি সেচ পাইপলাইন না বসানোর ইস্যুতে তাঁরা এই রেল-রোকো কর্মসূচী পালন করেন বলে জানিয়েছেন। এই পাইপলাইন না বসানোর জন্য প্রায় ৮০০ একর কৃষি জমি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলেও জানান কৃষকরা। আন্দোলনের তীব্রতায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে বিষয়টিকে নজরে আনার প্রতিশ্রুতি দিতে বাধ্য হওয়ার পর কৃষকরা আশ্বস্ত হয়ে বিক্ষোভটি তুলে নেন।

কৃষকদের আশ্বাস দেওয়া হয় ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে কাজ শুরু হবে। বিকেইউ (একতা-উগ্রহন)-এর জেলা প্রধান রাম সিং ভৈনিবাঘা বলেন, “গত ছয় মাসে পাঁচটি বৈঠক করেও ফল কিছু হয়নি”। কৃষকদের দাবি এই সেচ পাইপলাইন বসানোর খরচ সরকারকেই বহন করতে হবে।

সূত্র- দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কৃষকের থেকে লুট: ৩০ জানুয়ারি ২০২৩

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *