জয় কিষাণ: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

জয় কিষাণ ডেস্ক
লিখেছেন জয় কিষাণ ডেস্ক পড়ার সময় 4

হরিয়ানায় মুখ্যমন্ত্রীর সফর ঘিরে কৃষক বিক্ষোভ

হরিয়ানা রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রীর রোহতক সফরকে কেন্দ্র করে তুমুল বিক্ষোভ। মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টরের রোহতক সফরের সময় একদল কৃষক ও মহিলা সমাজকর্মীরা মিলে তাঁকে কালো পতাকা দেখান। চাষিদের বক্তব্য, ক্ষয়ক্ষতি মেটানোর জন্য কৃষকদের পাশে সরকার নেই। ফলে তাঁদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

অল ইন্ডিয়া ডেমোক্র্যাটিক উইমেনস অ্যাসোসিয়েশন, অল ইন্ডিয়া কিষাণ সভা, নাগরিক মঞ্চ, ছাত্র ইউনিয়নের কর্মীরা এই বিক্ষোভে অংশ নেন। এক মহিলাকে নির্যাতনে অভিযুক্ত সন্দীপ সিংকে বরখাস্ত করার জন্য চাপ সৃষ্টি করা হয়। চাষিদের সাফ কথা, তাঁদের দাবি না মিটলে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন আরো তীব্র হবে।

সূত্র – দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

আলু চাষে বিপুল ক্ষতি পূর্ব বর্ধমানে

আলু উঠতে শুরু করেছে মাঠ থেকে। ফলনও হয়েছে ভালো। চাষিদের দাবি, বস্তা পিছু যে দামে আলু বিক্রি করতে হচ্ছে তাতে লোকসান পিছু ছাড়ছে না তাঁদের। পূর্ব বর্ধমানে শীতকালীন অর্থনীতি অনেকটাই নির্ভরশীল আলু চাষের উপরে। জেলা কৃষি দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রায় ৭২ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়। এবার চাষের এলাকা ৬৭ হাজার হেক্টরের কাছাকাছি। বেশির ভাগ চাষিই জ্যোতি আলু চাষ করেন।

পূর্বস্থলী ২ ব্লকের সিহিপাড়া এলাকার বাসিন্দা ননীগোপাল বণিক বলেন, ‘‘ফলন খারাপ হয়নি। বিঘা প্রতি জমিতে ৭০ থেকে ৮০ বস্তা (এক বস্তায় আলু থাকে ৫০ কেজি) আলুর ফলন হয়েছে। তবে সেই আলু বিক্রি করতে হয়েছে দুশো টাকা বস্তা পিছু। অথচ বিঘা প্রতি জমিতে খরচ হয়েছে প্রায় ২২ হাজার। ফলে বিপুল লোকসান হয়েছে আলু বিক্রি করে।’’

সূত্র- আনন্দবাজার পত্রিকা

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

জমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধে রাকেশ টিকায়েতের আন্দোলন

ভারতের ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটি (NHAI) উত্তর প্রদেশের বারাণসী এবং ঝাড়খণ্ডের রাঁচি হয়ে কলকাতা অবধি সংযোগকারী ৬১০ কিলোমিটার অ্যাক্সেস-নিয়ন্ত্রিত এক্সপ্রেসওয়ের প্রস্তাব করেছে। প্রাক্তন মন্ত্রী সুধাকর সিং এবং কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত বারাণসী-কলকাতা এক্সপ্রেসওয়ের জন্য প্রস্তাবিত জমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের নেতৃত্ব দেবেন বলে জানা গেছে। প্রস্তাবিত প্রকল্পের ফলে জমি অধিগ্রহণের বিরোধিতায় ২৫ এবং ২৬ ফেব্রুয়ারি বিহারের কাইমুরে দুটি সমাবেশে বক্তব্য রাখবেন।

স্থানীয় কৃষকরা বসতবাড়ি, বাণিজ্যিক ও দামি জমি ভুলভাবে কৃষিজমি হিসেবে নিবন্ধিত হওয়ার অভিযোগে কিষাণ সংগ্রাম মোর্চা গঠন করেন। তাঁরা দাবি করেছেন যে প্রস্তাবিত ক্ষতিপূরণ বাজারের ২০ শতাংশের এমনকি কৃষি জমির জন্যও কম। সুধাকর সিং বলেন, কৃষকদের দাবি ন্যায্য। “এক্সপ্রেসওয়ের পাশে সার্ভিস রোড তৈরি করা হচ্ছে না এবং প্রতি পাঁচ কিলোমিটারে একটি ক্রসিং হবে। এতে কৃষকদের অবশিষ্ট জমি অকেজো হয়ে পড়বে এবং চাষাবাদ করা অসম্ভব হয়ে পড়বে। কিছু কৃষক ভূমিহীন হয়ে পড়বে।” সুধাকর সিং আরও বলেন যে তিনি একজন জন্মগত কৃষক এবং টিকায়েত-সহ যারা তাঁদের সমর্থন করেন, সবাইকে স্বাগত জানান তিনি।

সূত্র- হিন্দুস্তান টাইমস

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

তেলেঙ্গানায় বিদ্যুৎ-বিভ্রাটের বিরুদ্ধে চাষিদের বিক্ষোভ

তেলেঙ্গানার নালগোন্ডা জেলা জুড়ে বেশ কয়েকটি মণ্ডলের কৃষকরা শুক্রবার তাঁদের জমিতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেন। নক্রেকাল, নালগোন্ডা, নাগার্জুনসাগর, থিপ্পারথি এবং অন্যান্য মণ্ডলে অনুষ্ঠিত আন্দোলনে বিপুল সংখ্যক চাষি অংশগ্রহণ করেন।

নক্রেকাল মণ্ডলের কাদাপার্থি গ্রামে, কৃষকরা স্থানীয় সাবস্টেশনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। তাঁরা শুক্রবার একটি সমাবেশের মাধ্যমে প্রধান সড়ক অবরোধ করেন। চাষিদের অভিযোগ, তাঁরা চার ঘণ্টা ধরে বিদ্যুৎ বিভ্রাটের শিকার হচ্ছেন। কিছু বিক্ষোভ সহিংস রূপ নেয়, বিভিন্ন স্থানে কৃষক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষের খবরও পাওয়া গেছে।

সূত্র- ভি ৬ নিউজ তেলেগু

বিশদে জানতে ভিডিওটি দেখুন

ভারত-পাক সীমান্তে চাষে বাধা, প্রতিবাদে কৃষকরা

ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের সদস্যদের নেতৃত্বে বহু কৃষক ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের আশেপাশের গ্রাম থেকে এসে ডিএসি প্রশাসনিক কার্যালয়ে বিক্ষোভ-অবস্থান শুরু করেছেন। অভিযোগ, এই এলাকার কৃষকরা কয়েক দশক ধরে সীমান্তে সরকারি জমি চাষ করেন। প্রায় ৬০ জন কৃষককে চাষে বাধা দেওয়া হয়েছে। এখনও তাঁদের জমিতে চাষে বাধা দেওয়া হচ্ছে বলে খবর।

বিক্ষুব্ধ কৃষকরা জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন। ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের (একতা সিধুপুর) রাজ্য সভাপতি গুরমিত সিং জানান, তাঁদের জমিতে চাষের অনুমতি না দেওয়া পর্যন্ত এই বিক্ষোভ চলবে।

সূত্র – দ্য ট্রিবিউন

বিশদে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

ট্যাগ করা হয়েছে:
এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *